পাকিস্তান থেকে আগত ৫০ টি হিন্দু পরিবার হরিদ্বারে করলো পুণ্য স্নান, বললো- আমরা ভারতে থাকতে চাই

CAA নিয়ে পুরো দেশে চর্চা চলছে। এই আইনের আওতায় পাকিস্তান, আফগানিস্তান ও বাংলাদেশের নাগরিকদের নির্যাতিত হিন্দু, খ্রিস্টান, শিখ, পারসি, জৈন ও বৌদ্ধ ধর্মাবলম্বীদের ভারতের নাগরিকত্ব দেওয়া হবে। 31 ডিসেম্বর 2014 এর আগে যারা এসেছেন তাদের নাগরিকত্ব দেওয়া হবে। CAA নিয়ে চলমান আলোচনার মধ্যে সোমবার আতারি-ওয়াগাহ সীমান্ত হয়ে ৫০ টি হিন্দু পরিবার ভারতে পৌঁছেছিলেন।

এই পরিবারগুলির কাছে অনেক মালপত্র রয়েছে। অনুমান করা হচ্ছে এনারা আর পাকিস্তান ফিরতে নাও পারেন।পাকিস্তান থেকে আগত ৫০ টি পরিবারের কাছে ২৫ দিনের ভিসা আছে। এখন সব পরিবারগুলি হরিদ্বারে রয়েছেন। পাকিস্তান থেকে আগত লক্ষণ দাস নামের এক ব্যাক্তি বলেছেন আমি হরিদ্বারে পুন্য স্নানের পর নিজের ভবিষ্যত ঠিক করবো।

লক্ষণ দাস সংবাদমাধ্যমের সাথে কথা বলার সময় বলেন, আমরা ভারতে থাকতে চাই। পরিবারগুলি সংবাদ মাধ্যমকে কাছে পেয়ে পাকিস্তানে থাকা হিন্দুদের অবস্থার কথা বলতে শুরু করে। পাকিস্তান থেকে আগত হিন্দুরা বলেন, ভারত আমাদের জন্য সবথেকে শ্রেষ্ঠ দেশ আমরা এখানেই থাকতে চাই।

প্রসঙ্গত জানিয়ে দি, পাকিস্তানে সংখ্যালঘুদের উপর কট্টর সংখ্যাগুরুদের অত্যাচার লেগেই থাকে। সংখ্যালঘু মেয়েদের ধর্ষণ, খুন ইত্যাদি অত্যাচার সাধারণ ঘটনায় পরিণত হয়েছে। এখন CAA পাশ হওয়ার পর পাকিস্তান ও বাংলাদেশের হিন্দুদের মনে একটু আশার আলো জেগেছে। যদিও এই নাগরিকদের জন্য এই নিয়ম লাগু হবে না। পাকিস্তান থেকে আগত হিন্দুরা বলেন, ভারত আমাদের জন্য সবথেকে শ্রেষ্ঠ দেশ আমরা এখানেই থাকতে চাই। পাকিস্তানে আমরা অত্যাচারিত হয় কিন্ত এখানে থাকলে সুরক্ষিত থাকবো।

Create your website with WordPress.com
Get started
%d bloggers like this: