দেশদ্রোহ এর মামলা দায়ের হওয়ার পর থেকেই গায়েব হার্দিক প্যাটেল! হন্যে হয়ে খুঁজছে …

গুজরাটের (Gujarat) পাটিদার নেতা হার্দিক প্যাটেল (Hardik Patel) বিগত কয়েকদিন ধরে নিখোঁজ। হার্দিক প্যাটেলের এরকম ভাবে নিখোঁজ হওয়াতে গোটা গুজরাটে চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে। হার্দিকের স্ত্রী কিঞ্জল প্যাটেল (Kinjal Patel) পাটিদার নেতার নিখোঁজ হওয়ার পিছনে রাজ্য সরকারের ষড়যন্ত্র আছে বলে জানিয়েছে। যদিও গুজরাট পুলিশ সুপার কিঞ্জলের সমস্ত অভিযোগ খারিজ করে দিয়েছে।

কিঞ্জল মিডিয়ার সাথে কথা বলার সময় বলেন, আমার স্বামী আর আমার পরিবারকে রাজ্য সরকারের তরফ থেকে অত্যাচার করা হচ্ছে। আমার স্বামীর বিরুদ্ধে কোন প্রমাণ ছাড়াই দেশদ্রোহ এর অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। এই কাজ সরকারের বড় ষড়যন্ত্র। আপনাদের জানিয়ে দিই, ২০১৫ সালে হওয়া সংরক্ষণের জন্য হওয়া আন্দোলনের নেতৃত্বে থাকা হার্দিক প্যাটেল লাগাতার আইনি সমস্যায় জড়িয়ে পড়ছেন। হার্দিকের বিরুদ্ধে এখনো পর্যন্ত ২০ এর বেশি মামলা দায়ের আছে। আর সেই মামলা গুলোর মধ্যে বেশিরভাগ দেশদ্রোহ আর শান্তিভঙ্গের।

কিঞ্জল অভিযোগ এনে বলেন, ওনার স্বামী হার্দিক গত ১৮ই জানুয়ারি থেকে নিখোঁজ। এর আগে তাঁকে একটি মামলায় গ্রেফতার করে জেলে পাঠানো হয়েছিল। যদিও পড়ে তাঁকে জামিনে ছেড়ে দেওয়া হয়। কিন্তু কিঞ্জলের সমস্ত অভিযোগই গুজরাট পুলিশ খারিজ করে দিয়েছে। গুজরাট পুলিশের তরফ থেকে পরিস্কার জানানো হয়েছে যে, হার্দিকের নিখোঁজ হওয়া নিয়ে তাঁরা কিছু জানেনা।

পাটিদার নেতা হার্দিক প্যাটেলের এরকম ভাবে নিখোঁজ হওয়ার পর থেকে গোটা গুজরাটে চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে। আরেকদিকে গুজরাট পুলিশের মহা নির্দেশক শিবানন্দ ঝাঁ পুলিশের উপরে লাগানো সমস্ত অভিযোগ খারিজ করে দিয়েছেন। উনি বলেছেন, হার্দিক প্যাটেল নিয়ে আমাদের কিছু বলার নেই।

Create your website with WordPress.com
Get started
%d bloggers like this: